HomeTrendsসোশ্যাল মিডিয়ার অ্যালগরিদম কিভাবে কাজ করে?

সোশ্যাল মিডিয়ার অ্যালগরিদম কিভাবে কাজ করে?

বর্তমানে বিশ্বের সোশ্যাল মিডিয়ার ব্যবহারকারীর সংখ্যা প্রতিনিয়ত বেড়েই চলছে এর প্রধান কারণ হতে পারে অ্যালগরিদম। কারণ অ্যালগোরিদমের লক্ষনই হল ব্যবহারকারীকে যতদিন সময় পর্যন্ত সে পারে সোশ্যাল মিডিয়াতে আটকে রাখার চেষ্টা করে। মানুষের অভিজ্ঞতা কাস্টমাইজ এর ক্ষেত্রে ব্যবহৃত হয় অ্যালগরিদম। কারণ মানুষ যেসব বিষয়বস্তুর সাথে জড়িত থাকে সেগুলো কে সুন্দর ভাবে ফুটিয়ে তুলতে তাদের সামনে আরও বিভিন্ন রকমের বিনোদনমূলক জিনিস আনতে ব্যবহৃত হয় এটি। 

ব্যবহারকারীদের সুবিধার জন্য সোশ্যাল মিডিয়া প্লাটফর্মে যেসকল অ্যালগরিদম ব্যবহার করা হয় সেগুলো কে প্রতিনিয়ত আপডেট করা হচ্ছে এবং মানুষের সাথে সম্পূর্ণভাবে একই সাথে এগোতে সহযোগিতা করা হচ্ছে। অ্যালগরিদম  ব্যবহারের ফলে খুব সহজে অ্যালগরিদম মানুষের বিষয়বস্তুকে টার্গেট করে সেগুলো কে তাদের সামনে উপস্থাপন করতে পারছে। 

শুধুমাত্র সোশ্যাল মিডিয়া প্ল্যাটফর্মের নয় অন্যান্য ক্ষেত্রেও এই ধরনের অ্যালগরিদম ব্যবহার করা হয়। তাছাড়া আমরা পরিচিত এমন প্ল্যাটফর্ম যেমন ফেসবুক ইনস্টাগ্রাম এবং টুইটারের মতো সোশ্যাল মিডিয়ায় অ্যালগোরিদমের ব্যবহার রয়েছে। এইসকল অ্যালগরিদম গুলো অনেক জটিল সমস্যার সমাধান করতে পারে আবার এই সকল অ্যালগরিদম ব্যবহার করা হয় আপনি কোন বিষয়বস্তু দেখতে আগ্রহী এবং পূর্বে কোন বিষয়গুলো দেখেছেন এই সকল বিষয়ের উপর নির্ভর করে তারা আরো এসকল বিষয় আপনার সামনে উপস্থাপন করে। তবে ব্যবহারকারী যেমন দিনদিন বাড়ছে ঠিক তেমনি এইসকল অ্যালগরিদম কে আরও উন্নত করার প্রচেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে বিভিন্ন প্ল্যাটফর্ম। 

সোশ্যাল মিডিয়ার অ্যালগরিদম কিভাবে কাজ করে?

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমগুলোতে ব্যবহারকারীরা যেসকল বিষয়বস্তু নিয়ে দেখতে আগ্রহী হয় সেগুলো কে এটি নোটিফাই করে রাখে পরবর্তীতে ঠিক সে ধরনের আরো যে সকল পোস্ট ভিডিও ইমেজেস সোশ্যাল মিডিয়ায় আপলোড করা হয় সেগুলো কে তাদের সামনে উপস্থাপন করা হয়।   কিন্তু সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে প্রতিনিয়ত ভিডিও ইমেজ বাত্রা হচ্ছে যেগুলো ওই ব্যক্তির চাহিদার সাথে মিলছে না সেই কারণে এই সকল বিষয় বস্তু তাদের সামনে উপস্থাপন করা হচ্ছে না। 

তাছাড়া এই অ্যালগরিদম গুলো ব্যবহারকারীদের কেউ অনেক সময় নজরদারিতে রাখে কারণ এগুলো তাদের রুলস এর ভিতরে পড়ে যেমন ধরুন একজন ব্যক্তি কয়টি পোস্ট করছে কি কি শেয়ার করছে কি কি বিষয় নিয়ে আলাপ আলোচনা করছে এসকল বিষয়বস্তু অ্যালগরিদম তাদের কাজগুলো এই অনুসারে করে থাকে। 

ব্যবসায় ক্ষেত্রে সোশ্যাল মিডিয়া অ্যালগরিদম কিভাবে কাজ করে?

সোশ্যাল মিডিয়ায় আসার পর থেকে ব্যবসা সম্প্রসারণের আরো অনেক সুযোগ বেড়েছে কারণ অতীতে যে সকল অ্যালগরিদম ব্যবহার করা হয় সেগুলো থেকে এই সকল সোশ্যাল মিডিয়ার অ্যালগরিদম গুলো অনেক উন্নত এবং মানসিক ভাষা বুঝতে সক্ষম। উদাহরন হিসাবে ধরা যায় আপনি আপনার একটি পণ্য প্রচার এর জন্য সোশ্যাল মিডিয়ায় বিজ্ঞাপন দিলেন। 

ধরেন আপনার প্রোডাক্ট একটি টি-শার্ট,  এবং এটি আপনি সেল করতে চাচ্ছেন শুধু বাংলাদেশের ভিতরে এখন আপনি বাংলাদেশে টার্গেট করে আপনার বিজ্ঞাপনটি প্রচার করলে বাংলাদেশে যে সকল ব্যক্তিরা টি-শার্ট বিষয়ক সার্চ করে শুধু তাদের সামনেই এই বিজ্ঞাপনটি যাবে।  এবং তারা টি-শার্ট নিয়ে যদি কোন প্রকার আর্টিকেল লিখে থাকে ফেসবুকে অথবা টি-শার্ট সম্পর্কিত কোন প্রকার ভিডিও বা ছবি প্রদান করে থাকে ফেসবুকে সেগুলো অ্যালগরিদম বুঝতে পারে।   এবং তখন আপনার প্রোডাক্ট ই তাদের সামনে নিয়ে যায় যার ফলে সঠিক লোক বাছাই করা সম্ভব হয় এবং পণ্যের বিক্রয় অনেক গুনে বাড়ানো যায়। 

যদি আপনি মানসম্মত প্রোডাক্ট তৈরি করে সেগুলো কে সোশ্যাল মিডিয়ার মাধ্যমে বিক্রয় করতে চান তবে আপনি আপনার ব্যবসাকে দ্রুততার সাথে সামনে আগাতে পারবেন তবে তার জন্য বুঝতে হবে তাদের এই অ্যালগরিদম গুলো কিভাবে কাজ করে। 

এত সময় আমরা জানলাম অ্যালগরিদম কি কিভাবে কাজ করে এবং সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমের অ্যালগরিদম মূলত কি এটি কিভাবে তৈরি হয় এই সকল বিষয় সম্পর্কে আমাদের কোন প্রকার ধারণা নিয়ে চলুন আমরা এই সম্পর্কে সাধারণ কিছু তথ্য জেনে নিন।

সোশ্যাল মিডিয়ায় যে সকল অ্যালগরিদম ব্যবহার করা হয় সেগুলো কে তৈরি করা হয় বিভিন্ন কোডের সাহায্যে।  এই সকল কোড ব্যবহার করে একটি সেট আকারে তৈরি করা হয় যেগুলো বিভিন্ন সোশ্যাল মিডিয়া প্ল্যাটফর্ম সুন্দরভাবে বসিয়ে দেয়া হয় যেগুলো ব্যবহারকারীর সবচেয়ে প্রাসঙ্গিক সামগ্রী নির্ধারণ করতে সাহায্য করে।

 

কোন কোন সোশ্যাল মিডিয়া সামাজিক অ্যালগরিদম ব্যবহার করে?

অ্যালগোরিদমের কথা উঠলে 90 পার্সেন্ট সোশ্যাল মিডিয়া প্ল্যাটফর্ম এর অ্যালগরিদম ব্যবহার করে থাকে কারণ তাদের ব্যবহারকারীকে সর্বোচ্চ সেবা দিতে চায়।  আর সর্বোচ্চ সেবা দিতে হলে তাদেরকে প্রতিটা গ্রাহকের চাহিদার সাথে মিলিয়ে প্রাসঙ্গিক বিষয় বস্তু তাদের কে দেখাতে হবে এই সকলের জন্য প্রয়োজন হবে অ্যালগরিদম।  কারণ একজন মানুষের পক্ষে মিলিয়ন মিলিয়ন মানুষের জন্য যাচাই-বাছাই করে এই সকল কিছু তৈরি করা সম্ভব নয় তাই এগুলোকে কোডিং এর মাধ্যমে তৈরি করে প্লাটফর্মে যুক্ত করা হয়।

আমরা নিত্যদিনের যে ফেসবুক ইনস্টাগ্রাম ব্যবহার করে সেগুলোর প্রত্যেকটাই অ্যালগরিদম ব্যবহার করে থাকে। এবং প্রতিটা অ্যালগোরিদমের রয়েছে আলাদা আলাদা কাজ ফেইসবুক এর অ্যালগরিদম গুলো আলাদা কাজে ব্যবহৃত হয়। এবং ইনস্টাগ্রামের অ্যালবাম গুলো আলাদা কাজে ব্যবহৃত হয় তাদের জন্য নির্দিষ্ট করে বানিয়েছে। 

ধরে নিতে পারেন আপনি ফেসবুকের একটি পেজকে ফলো করে রাখছেন সেই পেইজের বিভিন্ন রকম ভিডিও আপনাকে মুগ্ধ করে এবং সেই সকল ভিডিও আপনি দেখতে পছন্দ করেন। ফেসবুক অ্যালগরিদম এটা বুঝতে পেরে আপনি যখন আপনার নিউজ ফিডে স্কুল করবেন তখন আরো অন্যান্য ব্যক্তিত্বদের ঐসকল টাইপের ভিডিও অর্থাৎ আপনি যে ক্যাটাগরির ভিডিও পছন্দ করতেন সেই সকল ক্যাটাগরির ভিডিও আপনার সামনে উপস্থাপন করবে এইসকল করা হয় অ্যালগরিদম এর সাহায্যে।

সোশ্যাল মিডিয়ার অ্যালগোরিদমের খারাপ ব্যবহার? 

এই সকল সোশ্যাল মিডিয়া ব্যবহার করার পরেও এদের অ্যালগরিদম কিভাবে কাজ করে এগুলো সম্পর্কে নির্দিষ্ট কোনো ধারণা পায়নি এর আগে আজকে বাংলায় আপনাদের জন্য এই আর্টিকেলটি লেখা। অ্যালগোরিদমের ভিতরের কাজ গুলি মূলত রহস্যই হয়ে থাকে কারো নেই সকল রহস্য যদি ফাঁস হয়ে যায় আরো অনেক ডেভলপার আছে যারা এই ধরনের আরও সোশ্যাল মিডিয়া প্লাটফর্ম তৈরি করে ফেলতে পারবে নিমিষেই।

তাই ফেইসবুক বলেন টুইটার বলেন অথবা ইউটিউব কখনোই তাদের অ্যালগোরিদমের মেইন কাজগুলো তারা প্রচার করে না।  তবে এটুকু বলা যায় এরা মানুষের গতি বৃদ্ধি নিয়ন্ত্রণ করে অথবা লক্ষ্য রাখে কারণ আপনি যখন কোন বিষয় সম্পর্কে গুগলের ফেসবুকে অথবা ইউটিউবে সার্চ করবেন তখন দেখবেন যে ঠিক ঐরকম কিছু বিজ্ঞাপন আপনার নিউজ ফিডে আসছে আপনি যে সকল কর্মকান্ড করেন সেই সকল স্থানে অ্যাড আসছে। এই সকল সম্ভব হয়েছে মূলত অ্যালগরিদম এর সাহায্যে।  অ্যালগরিদম দেখতে পাওয়া যায় না যার কারণে যে সকল সোশ্যাল মিডিয়া প্ল্যাটফর্ম এটি ব্যবহার করা হয় সেগুলো সম্পর্কে মানুষের নির্দিষ্ট কোনো ধারণা নেই শুধু তারা এটি ব্যবহার করে তাদের ব্যবসায়িক কর্মকাণ্ড সংগঠিত করে অথবা বিনোদনের ক্ষেত্রে পূরণ করে। তবে অ্যালগরিদম মানুষের উপর অতিরিক্ত নিয়ন্ত্রণ রাখে কারণ মানুষ যাতে স্যোশাল মিডিয়া ব্যবহারে বাধ্য হয় তার জন্য প্রতিনিয়ত তার পছন্দ অনুযায়ী জিনিস তার সামনে উপস্থাপন করে। মানুষ প্ল্যাটফর্মের স্যোশাল মিডিয়া ব্যবহারে আগ্রহী হয়। এবং দীর্ঘ সময় পর্যন্ত সেখানে উপস্থিত থাকে যার একটি সোশ্যাল মিডিয়া প্ল্যাটফর্ম এর জন্য অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ।

এই সকল বিষয়বস্তু যেহেতু আমরা বিনামূল্যে ব্যবহার করছি তাই অ্যালগরিদম যেভাবে কাজ করছে তাদেরকে সেভাবে কাজ করতে দেয়া উচিত কারণ আমরা নিজেরাই এটি দ্বারা পরিচালিত হচ্ছে।

সোশ্যাল মিডিয়া অ্যালগরিদম খারাপের কয়েকটি মূল কারণ হলো :

  1. মানুষের তৈরি এবং এটি পক্ষপাতিত্ব করতে সক্ষম।  যার কারণে এটি ব্যবহারে পরবর্তীতে অনেক সমস্যা হতে পারে। ফেইসবুকের এমন অ্যালগরিদম কে কিছুদিন পূর্বেও দেখা গিয়েছে।
  2. মানুষের সকল ডাটা নিজের কাছে নিতে পারে এমনকি আপনার কন্টাক্ট নাম্বার আপনার পার্সোনাল ছবি থেকে শুরু করে যাবতীয় সবকিছুই তারা নিজের কাছে রাখেন।  এটি আমি প্রথমেই বলেছি এটি আমাদের কে নিয়ন্ত্রণ করে এবং আমাদের নিয়ন্ত্রণকে রা সব সময় লক্ষ্য রাখে।
  3. তাদের সিদ্ধান্তকে সোশ্যাল মিডিয়া প্ল্যাটফর্ম এদের মতামতকে প্রাধান্য দেয়া হয়ে থাকে এবং এদের চাহিদা অনুযায়ী আমাদেরকে নিউজফিড পরিবেশন করা হয়।
RELATED ARTICLES

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

Most Popular